মানসিক চাপ কমাতে যোগব্যায়াম

প্রকাশিত: ৪:৩২ অপরাহ্ণ, জুন ১৯, ২০২০

মানসিক চাপ কমাতে যোগব্যায়াম

প্রেসক্রিপশন। নাগরিক জীবনে দুশ্চিন্তার শেষ নেই। বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস সেই দুশ্চিন্তাকে কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তা, ভবিষ্যতের ভাবনা, একাকীত্ব, আতঙ্ক, একঘেয়েমি সবমিলে মানুষ এখন কঠিন সময় পার করছে। ফলে মানসিক চাপ ও উদ্বেগ বেড়ে যাওয়াই স্বাভাবিক।

এই বিপদ শুধু আমাদের দেশে নয়, সারাবিশ্ব এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়ছে। যেকোন কঠিন পরিস্থিতিতে মন শান্ত রাখা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এতে বর্তমান সময়কে যেমন মেনে নেয়া যায়, তেমনি ভবিষ্যতের পরিকল্পনাগুলোও ঠিকভাবে করা যায়।

শরীর ও মন সুস্থ রাখতে প্রাচীনকাল থেকেই যোগব্যায়াম বা ইয়োগা বেশ জনপ্রিয়। নিয়মিত যোগব্যায়াম করলে ওজন কমে, শরীরে রক্ত চলাচল বাড়ে, হৃদরোগের ঝুঁকি কমে। শারীরিক সুস্থতার পাশাপাশি যোগব্যায়ামের দারুণ প্রভাব আছে মনের ওপর। নানা গবেষণায় দেখা গেছে, মানসিক চাপ, দুশ্চিন্তা ও আতঙ্ক নিয়ন্ত্রণে যোগব্যায়াম অত্যন্ত কার্যকর।

প্রাণায়াম

সোজা হয়ে বসে ধীরে ধীরে নাক দিয়ে লম্বা শ্বাস নিন। একইভাবে ধীরে ধীরে মুখ দিয়ে শ্বাস ছাড়ুন। এভাবে প্রতিদিন ১৫ থেকে ২০ বার প্রাণায়াম করতে হবে।

এই ব্যায়াম মানসিক অবসাদ দূর করতে সাহায্য করে। তাছাড়া করোনা সংক্রমিত হলে ফুসফুসের সমস্যা প্রকট হয়। একারণে চিকিৎসকরা এইসময় সবাইকে ফুসফুসের ব্যায়াম করার পরামর্শ দিচ্ছেন।

উত্তরাসন

উত্তরাসন পদ্ধতিতে ব্যায়ামের জন্য প্রথমে সোজা হয়ে দাঁড়াতে হবে। এবার শরীরের ওপর দিকটি নীচে ঝুঁকে হাত দিয়ে পায়ের পেছনে স্পর্শ করতে হবে। ৫ সেকেন্ড এভাবে থেকে আবার সোজা হয়ে দাঁড়াতে হবে। এভাবে প্রতিদিন ৫ বার উত্তরাসন পদ্ধতিতে ব্যায়াম করতে হবে।

এই পদ্ধতিতে ব্যায়াম করলে শরীরের রক্ত চলাচল ঠিক থাকে। মস্তিষ্কেরও রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে। কোমর ও পায়ের পেশী মজবুত হয়।

মেডিটেশন

মাইন্ডফুলনেস মেডিটেশন উদ্বেগ কমাতে সাহায্য করে। মেডিটেশনের সময় বর্তমান নিয়ে থাকার ফলে মন অনেক বেশি ইতিবাচক হয়। আত্মবিশ্বাস ও স্থিরতা ফিরে আসে। নিয়মিত মেডিটেশন করা এইসময়ের জন্য খুবই জরুরী।

শরীরের মতো মনের যত্নও খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মানসিক চাপ ও দুশ্চিন্তা থেকেই বড় সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই মন শান্ত রেখে স্বাভাবিকভাবেই পাড়ি দিতে হবে এই কঠিন পরিস্থিতি।