করোনাকে ‘ট্রাম্প ভাইরাস’ বললেন স্পিকার পেলোসি

প্রকাশিত: ১১:০৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২০

করোনাকে ‘ট্রাম্প ভাইরাস’ বললেন স্পিকার পেলোসি

লস্কর আল মামুন, যুক্তরাষ্ট্র।যুক্তরাষ্ট্রের হাউজ অভ রেপ্রেজেন্টেটিভসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি করোনাকে বললেন ‘ট্রাম্প ভাইরাস’। করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় চরম ব্যর্থতায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কড়া সমালোচনা করে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তিনি এমন মন্তব্য করেন।

গণমাধ্যমে বক্তব্য দিতে গিয়ে স্পিকার পেলোসি বলেন, করোনা মহামারি পরিস্থিতি ভালো হওয়ার থেকে বরং আরও খারাপ হয়েছে ট্রাম্পের ব্যর্থতায়। এটি এখন স্পষ্ট ‘ট্রাম্প ভাইরাস’।

এদিনই দেশটির করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিফ করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। কয়েকদিন বন্ধ থাকার পর আবারও নিয়মিত ব্রিফ শুরু করেন তিনি। তবে এবারের ব্রিফিংয়ে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসের প্রধান ডা. ফাউসিকে।

ট্রাম্পের ব্রিফিং শেষে করোনাভাইরাসকে ‘ট্রাম্প ভাইরাস’ নামে আখ্যা দেন শীর্ষ ডেমোক্রেট নেত্রী স্পিকার পেলোসি। মহামারি পরিস্থিতি ভালো হওয়ার আগে আরও খারাপের দিকে যেতে পারে, ট্রাম্পের এমন বক্তব্যের পর পেলোসি এই প্রতিক্রিয়া জানান।

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় মার্কিনিদের ট্রাম্প মাস্ক পরতে আহ্বান জানিয়েছিলেন। যদিও শুরু থেকে তিনি মাস্ক পরাকে গুরুত্ব দিতে চাননি। মাস্ক পরা নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন নীতির কঠোর সমালোচনা করেন হাউজ স্পিকার পেলোসি।

তিনি বলেন, মাস্ক পরার আহ্বানের মধ্যে দিয়ে প্রেসিডেন্ট এতদিন যে ভুলগুলো করেছেন সেগুলোর স্বীকৃতি দিলেন। তিনি নিজেই এখন মাস্ক পরছেন। এর ফলে স্বীকৃতি পেল যে মাস্ক পরাতে কোনো ভাওতাবাজি নেই।

এর আগে চীনের সমালোচনা করে করোনাভাইরাসকে ‘চীনা ভাইরাস’ নামে আখ্যা দিয়েছিলেন ট্রাম্প।

এদিকে বিশ্বজুড়ে করোনা পরিস্থিতির সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত  যুক্তরাষ্ট্র। আক্রান্ত ও মৃতের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে দেশটি। একক দেশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রেই একমাত্র লক্ষাধিক মানুষ করোনায় মারা গেছেন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত দেড় কোটির কাছাকাছি মানুষের মৃত্যু হয়েছে, আক্রান্ত হয়েছেন ৪০ লাখের বেশি মানুষ।