সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড’ নারী অগ্রযাত্রায় মুক্ত মঞ্চ

প্রকাশিত: ১১:০২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২০, ২০২০

সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড’ নারী অগ্রযাত্রায় মুক্ত মঞ্চ

হুমায়রা নাজিব নদী ।আমাদের মেয়েদের নামে কিছু কট্টর অভিযোগ আছে। যদিও অভিযোগ গুলো তালপাতার ভেলায় ভেসে পুরুষতান্ত্রিক সমাজ থেকেই উঠে আসে বারবার। তবুও একটা কথা থেকে যায়, যা রটে তা কিছু বটে। আমাদের সমাজের অনেক নারীর চরিত্রে আজও সেই পুরুষতান্ত্রিক সমাজের অভিযোগের কিছু সত্যতা মেলে। সেই অভিযোগ গুলোর একটি হচ্ছে আমরা মেয়েরা মেয়েদের লিফ্ট আপ করতে পারিনা বা চাইনা। রবিন্দ্রনাথ ঠাকুরের একা কথা আছে, ‘এমন গরীবও আছে, যারা প্রাণ খুলিয়া পরের প্রশংসাও করিতে জানেনা’। জি হ্যাঁ, এমন লোক নারী কিংবা পুরুষ উভয়ের মধ্যে বিদ্যমান থাকলেও বেশিরভাগ সময়ে নারীদেরকেই এই অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়। কিন্তু কিছু মানুষের অস্তিত্ব সবসময়ই থাকবে যারা স্রোতের বিপরীতে হাঁটার সাহস রেখে প্রচলিত ধারনাকে ভুল প্রমাণ করার যোগ্যতা রাখে। আজকে শুরুতে আমি এমন একজন নারীর কথা বলবো, যিনি উৎসাহ এবং উদ্দিপনার আলো অকপটে ছড়িয়ে দেয়ায় বিশ্বাস রাখেন। একটা অনলাইন ওম্যান গ্রুপের মাধ্যমে তাঁর সাথে আমার পরিচয় হলেও পরবর্তীতে উনার সাথে আমার ব্যক্তিগত সখ্যতা গড়ে ওঠে। তিনি হচ্ছেন আরিফা বি হোসেন।
আরিফা বি হোসেন আপুর সাথে পরিচয়ের পর থেকে উনার যে গুণটা আমাকে বিশেষ ভাবে নাড়া দিয়েছে তা হচ্ছে তিনি অন্যকে প্রচন্ডভাবে এনকারেজ করার ক্ষমতা রাখেন। মানুষের ছোট ছোট গুণ গুলোও এত অসাধারণ ভাবে তাঁর সুন্দর দৃষ্টিতে ধরা দেয়। আমার কাছে মনে হয়, পৃথিবীর প্রতিটা নারী যদি তাঁর মতো হতো, তাহলে নারী সমাজে উন্নতির মঙ্গলময় ধারাটা অব্যাহত রাখতে কোনো কিছুই আর বাঁধা হয়ে দাড়াতোনা। আজকে আমাদের প্রিয় বোন আরিফা বি হোসেনের একটা মটিভেশনাল উদ্যোগ নিয়ে কিছু লিখবো।
২০১৮ সালের মাঝামাঝি সময়ে আরিফা আপুর উদ্যোগে খুলনা ডিভিসনের ৪০ জন নারী সদস্যের সমন্বয়ে গঠিত হয় ‘খুলনা ডিভিসন ওমেন’স এ্যাসোসিয়েশান।যার লক্ষ্য ছিলো খুলনা ডিভিসনের নারীদের একত্রীকরণ এবং তাদের কল্যাণে কিছু সৃস্টিশীল কাজের সম্পৃক্ততার আওতা সৃস্টি। যহেতু আমি নিজে খুলনা ডিভিসনের মানুষ, এই কারনে গ্রুপটা তৈরির শুরু থেকেই আমার সৌভাগ্য হয়েছে আরিফা আপুর টিমের সাথে থাকার। খুলনা ডিভিসনের নারীদের সৃস্টিশীলতার সুযোগ তৈরীর পাশাপশি এই গ্রুপের আরো একটি লক্ষ্য ছিলো মেম্বারদের শিশু সন্তানদের উপযুক্ত বিনোদোন এবং বিকাশের সুযোগ সৃস্টি। পরবর্তীতে গ্রুপের সম্প্রসারন এবং জনপ্রিয়তা এমনভাবে বৃদ্ধি পায় যে কেবলমাত্র খুলনা ডিভিসনের নারীদের নিয়ে কার্যক্রম সীমিত না রেখে বিস্তৃত পরিসরে বাংলাদেশের সকল নারীদের জন্য গ্রুপটা উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। এই সময় গ্রুপের নাম পরিবর্তন করে নতুন নামকরন হয় ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড’। স্থান, জেলা, এলাকা নির্বিশেষে বাংলাদেশের সকল এলাকার নারীদের নিয়ে নতুন আঙ্গিকে যাত্রা শরু হয় ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড’এর। সেই সাথে এর কার্যপরিধীও বৃদ্ধি পায়। ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড’এর পক্ষ থেকে অংশ নিতে ইচ্ছুক , এমন মেম্বারদের আয়োজনে সংগঠিত হয় রিইউনিয়ন প্রোগ্রাম। এই আয়োজনে অংশগ্রহণকারীদের সহযোগীতা এবং অবদান ছিলো সপ্রতিভ এবং আন্তরিক। এই প্রোগ্রামে অংশগ্রহণকারীদের শিশু সন্তানদের বিনোদন ও বিকাশকে মাথায় রেখে তাদের জন্য বিশেষ কিছু আকর্ষণীয় আয়জন ও প্রতিযোগিতা মূলক খেলাধুলার ব্যাবস্থাও রাখা হয়। এছাড়াও কিছু সৃস্টিশীল ও উন্নয়নমুলক পরিকল্পনারও সূত্রপাত ঘটানো হয়, যা পরবর্তীতে এক এক করে বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয়া হয়। এরকমই একটি পরিকল্পনার অংশ হিসেবে পরবর্তীকালে ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ডকে নিজস্ব ব্যাবসা দাড় করাতে ইচ্ছুক এমন নারী এবং নারী উদ্যোক্তাদের জন্য মুক্ত প্লট হিসেবে সুযোগ করে দেয়া হয়। এই মুক্ত প্লটে ব্যাবসায়ী এবং উদ্যোক্তা নারীরা তাদের নিজস্ব পন্য গুলোর প্রসারের সুযোগ পায়। এভাবে নারীদের ব্যাবসা সম্প্রসারন বা প্রতিষ্ঠার সুযোগ করে দিচ্ছে ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড।
২০১৯ সালে আরিফা বি হোসেনের সাথে গ্রুপ মডারেটর হিসেবে যোগদান করেন লুতফুন্নাহার হীরা এবং শারমিন দিশা।নতুন মডারেটরদের তত্বাবধানে প্রতিনিয়তই ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড’এর মেম্বার নারী উদ্যোক্তাগন তাদের নিজ নিজ প্রোডাক্ট গ্রুপে প্রেজেন্টেশানের মাধ্যমে টার্গেট কাস্টমারদের কাছে নিজেদের পরিচিতি তুলে ধরতে থাকে। ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড’ গ্রুপে নারী উদ্যোক্তারা যেমন আছেন, তেমনি এমন অনেকে আছেন, যারা প্রতক্ষ্যভাবে হয়ত বিজনেসের সাথে জড়িত নন, কিন্তু ভবিষ্যতে হয়ত কিছু করার কথা ভাবছেন। ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড’ এসকল কাজে আগ্রহীদের জন্যেও অন্যতম মটিভেশনাল প্লট হিসেবে কাজ করছে। এছাড়া উদ্যোক্তা নারীদের কাছ থেকে ক্রয় করার মতো ক্রেতাদের সংখ্যাও এই গ্রুপে নেহায়েত কম নয়। অনেকেই উদ্যোক্তাদের কাছ থেকে পণ্য ক্রয় করে নিজেদের সৌখিন প্রয়োজন গুলো পুরন করে থাকেন। এর ফলে বাংলাদেশি কমিউনিটির মধ্যে ঐক্য সৃস্টি হয়, যা ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড এর নারী উদ্যোক্তাদের ব্যাবসা সম্প্রসারনের সুযোগ বহুগুনে বাড়িয়ে দেয়।
২০১৯ সালে ‘সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড গ্রেটার খুলনা এ্যাসোসিয়েশানের রেফারেন্সে বৈশাখী এ্যাওয়ার্ডিং বডির কাছ থেকে বৈশাখী এ্যাওয়ার্ড গ্রহন করে। যা এর পরবর্তী পথচলাকে বহুগুনে অনুপ্রাণিত করে। এই কাজগুলোর পাশাপাশি সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশে অবস্থিত নারী ও শিশুদের কল্যাণেও বিগত দুই বছর ধরে কাজ করে আসছে।নারীদের ক্ষেত্রে পেশাগত প্রশিক্ষণের পাশাপশি গ্রুপটি তাদের মেন্টাল হেল্থ সাপোর্টের জন্যেও কিছু পদক্ষেপ গ্রহন করেছে এবং সক্রিয় ভুমিকা পালন করছে। এই হিসেবে
সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ডকে একটি ওম্যান এমপাওয়ারমেন্ট হিসেবে আখ্যা দেয়া যায়, যার মুল স্লোগান এবং নীতি ‘Dream and do’
সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ডের ভবিষ্যত পরিকল্পনায় রয়েছে নন প্রোফিট চ্যরিটির মাধ্যমে বন্চিত নারীদের উপযুক্ত প্রশিক্ষণ ও যথাযথ আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে সাবলম্বী হতে সহায়তা করা। সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ডের আয়োজনে সংগঠিত হয় বেশ কিছু ইভেন্ট, যেখানে অংশগ্রহণকারী শিশুদের বিভিন্ন এ্যাকটিভিটিস এবং পার্টিসিপেশনকে গুরুত্ব সহকারে অনুপ্রাণিত করা হয়। এভাবে প্রতিটা পদক্ষেপে নারী ও শিশুদের সহায়তা ও সামর্থ্যন আন্তরিকতার সাথে দিয়ে যাচ্ছে সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড। এই গ্রুপে বর্তমান সদস্যের সংখ্যা প্রায় হাজারের কাছে। এই গ্রুপের সুস্ঠও সুন্দর পরিচালনায় এ্যাডমিন ও মডারেটরের পাশাপশি রয়েছে কার্য কমিটিতে আরো কিছু মেম্বার রয়েছেন, যাদের অবদান সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড এর পরিচালনায় সহায়ক ভুমিকা রেখে চলেছে। এই সদস্যের মধ্যে আছেন সালমা খান এবং মেহজাবিন ওয়াহাব। নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার পরিচয়ে সৎ উদ্দেশ্যে গঠিত এই গ্রুপের সাথে প্রথম থেকে থাকতে পেরে এবং ফাউন্ডিং মেম্বার হতে পেরে আমি সত্যিই গর্বিত। অফুরান শুভ কামনা তাদের জন্য। উৎসাহ নিয়ে এগিয়ে যাক সম্পুর্না নারীরা, এগিয়ে যাক সম্পুর্না’স ওয়ার্ল্ড।

আর্কাইভ

April 2021
M T W T F S S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930